রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
বেনজিনের নাভানা পার্ক বন্ধ ঘোষণা নিজ বাসা থেকে বাবা- মেয়ের মরা দেহ উদ্ধার সন্ধ্যার মধ্যে তীব্র ঝড় যেসব অঞ্চলে কুষ্টিয়ায় রেলের কৃষিজমি ৮০ হাজার টাকা কাঠায় বিক্রি, বাড়ি নির্মাণ হিট স্ট্রোকে অটোচালকের মৃত্যু পরকীয়া করতে গিয়ে যুবক খুন, আটক ৩ ভোট গ্রহনে অনিয়ন হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের চাকুরী থাকবে না… নির্বাচন কমিশনার সাতক্ষীরা পৌর এলাকায় সুপেয় পানি সরবরাহ নিশ্চিত ও বর্ধিত পানির বিল প্রত্যাহারের দাবীতে গণঅবস্থান কর্মসূচী গাবুরা ইউনিয়ন জলবায়ু সহনশীল ফোরামের অর্ধবার্ষিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত শ্যামনগরে আমন মৌসুমে ১১৪৮০ কেজি ধানবীজ ও ৯১৮৪ কেজি সার বিতরণ করেছে লিডার্স

আবাসিক হোটেলে নিয়ে প্রেমিকাকে হত্যার কারণ জানাল মিঠুন

নিজস্ব প্রতিবেদক / ২২৩ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২২, ৭:৩৬ অপরাহ্ন

রাজশাহী মহানগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় আবাসিক হোটেলে নারীকে হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া মিঠুন আলী হত্যার দায় স্বীকার করেছেন।

বিয়ের জন্য চাপ দেওয়ায় আবাসিক হোটেলে নিয়ে প্রেমিকাকে হত্যা করে প্রেমিক মিঠুন। তাকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

মিঠুন আলী (২৮) ও নিহত জয়নব বেগমের (৪১) বাড়ি নাটোর সদর উপজেলায়।

পুলিশের কাছে মিঠুন স্বীকার করেছেন যে, তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। অবৈধ শারীরিক সম্পর্কও ছিল তাদের। জয়নব সম্প্রতি তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে থাকায় পরিকল্পিতভাবে তাকে বালিশচাপা দিয়ে খুন করে বলে স্বীকার করেছে মিঠুন।

মিঠুনকে সোমবার রাতে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে রাজপাড়া থানা পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক।

পুলিশ কমিশনার জানান, মহানগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকার ড্রিম হ্যাভেন হোটেলের তালাবদ্ধ ৪০৩ নম্বর কক্ষে রোববার রাত ১২টার দিকে জয়নবের লাশ পাওয়া যায়। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে নিহত নারীর নাম জয়নব বেগম। তিনি নাটোর সদর থানার আটঘরিয়া গ্রামের তসির প্রামাণিকের মেয়ে। আর গ্রেফতারকৃত মিঠুন আলীর বাড়ি নাটোর সদর থানার আগদিঘা গ্রামে। তারা নিজেদের নাম-পরিচয় গোপন করে ভুয়া পরিচয় দিয়ে হোটেলে উঠেছিলেন।

হোটেলের রেজিস্টারের তথ্য অনুযায়ী, রোববার সকালে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে জয়নব ও মিঠুন ওই হোটেলে উঠেন। হোটেলের রেজিস্টারে জয়নবের নাম লেখা হয় জুলেখা (২৩) আর মিঠুন নিজেকে মিজান (২৭) হিসেবে নাম লেখান। দুইজনের বাড়ি রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে বলে উল্লেখ করা হয়।

তবে ওই নারীর ব্যাগে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি পাওয়া যায়। সেখান থেকে নারীর পরিচয় নিশ্চিত হয় পুলিশ। পুলিশ নিশ্চিত হয় দুজনই স্থানীয় একটি ইটভাটার শ্রমিক। এদের মধ্যে জয়নবের বিয়ে হলেও বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। তার দুটি ছেলে ও দুটি মেয়ে রয়েছে। মিঠুনের স্ত্রী ও এক সন্তান রয়েছে। ইটভাটাতেই তিন মাস আগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। তাদের মধ্যে অবৈধ শারীরিক সম্পর্কও ছিল।

পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর পুলিশের পক্ষ থেকে খবর দেওয়া হয় নিহতের পরিবারকে। সোমবার বিকালে এ ঘটনায় নিহতের ভাই তছলেম প্রামাণিক রাজপাড়া থানায় একটি মামলা করে। মঙ্গলবার দুপুরে আসামি মিঠুনকে আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সূত্রঃ যুগান্তর


এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Translate »
error: Content is protected !!
Translate »
error: Content is protected !!