শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে মহিলা আওয়ামীলীগের ঈদ বস্ত্র বিতরণ শাড়ী, লুঙ্গী ও খাদ্যসামগ্রীর সাথে মুরগীও পেলেন দুস্থ্য ও হতদরিদ্ররা হারভেস্টার মেশিন থাকলে কৃষকরা অনেক লাভবান হবেন: ডিসি কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বিএডিসি কর্মকর্তা ঈদের দিনেও ঝড়বৃষ্টি বজ্রপাতের আভাস প্রবাসী জয় নেহালের সহযোগিতায় কুষ্টিয়া দিনমনি স্কুলের ছাত্রদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সবুজকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে ইউএনও সোহেল মারুফের বিদায় সম্বর্ধনা দৌলতপুরে নিখোঁজ শিশুর অর্ধগলিত বস্তা বন্দী লাশ প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে উদ্ধার ১০ মায়ের মুখে হাসি ফোটাল কুষ্টিয়ার ‘মবিঅ’ কুষ্টিয়ায় একদল তরুনদের উদ্যোগে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
ঘোষণা:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...

স্বামী থাকা অবস্থায় মেয়েদের দ্বিতীয় বিয়ে করার বিষয়ে আইন কি বলে, আসুন জেনে নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩৮৯ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

মুসলিম আইন অনুযায়ী, এ রকম বিয়ে বৈধ বলে গণ্য হবে না। এই বিয়ে বাতিল বা অবৈধ বিবাহ বলে গণ্য হবে।

এ বিষয়ে বরগুনা জজকোর্টের অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, অন্য কারো সঙ্গে বিয়ে করতে চাইলে প্রথমে তাকে ডিভোর্স নিতে হবে। এরপর নির্দিষ্ট সময় অতিক্রমের পর সেই নারী বিয়ে করতে পারবে। চাইলেই ডিভোর্সের পরদিনই বিয়ে করতে পারবে না। এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

বিধান অনুযায়ী, ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধির ৪৯৪ ধারায় বলা আছে, পূর্বের বিয়ে থাকা অবস্থায় কোনো স্ত্রী একাধিক বিয়েতে আবদ্ধ হলে ৭ (সাত) বছর কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ড হতে পারে, আর ৪৯৫ ধারায় বলা আছে যদি পূর্বের বিয়ে গোপন করে তাহলে ১০ বছর কারাদণ্ড এবং অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে।

তবে ৪৯৪ ধারার একটা ব্যতিক্রম ছিল, যদি সাত বছর ধরে স্বামী নিরুদ্দেশ থাকে এবং জীবিত আছে এ রকম কোনো সন্ধান না পাওয়া যায় তাহলে দ্বিতীয় বিয়ে করতে পারবে। শর্ত হলো, নতুন বিয়েতে পূর্বের বিয়ের সকল ঘটনা সুস্পষ্টভাবে বলতে হবে।

এদিকে স্বামীও যদি একই কাজ করেন তাহলে তার জন্যও এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে ও তার ভরণপোষণ না দেয়া একটি ফৌজদারি অপরাধ।

মুসলিম পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ ১৯৬১-এর ৬ ধারামতে, দ্বিতীয় বিয়ের ক্ষেত্রে সালিশি পরিষদের কাছে অনুমতি না নিলে বিয়ে নিবন্ধন হবে না। আর তাই প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে অবৈধ বলে গণ্য হবে।

এ অবস্থায় প্রতিকার পেতে আপনি ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দণ্ডবিধি আইন-১৮৬০-এর ৪৯৪-এর বিধানমতে মামলা করতে পারেন। এ সময় স্বামী দ্বিতীয় বিয়ের কাবিননামা আদালতে দেখাতে হবে। আপনার স্বামীর অপরাধ প্রমাণিত হলে সাত বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

এ ছাড়া সন্তান থাকলে আপনি তার ভরণপোষণ পাবেন। এ ক্ষেত্রে পারিবারিক আদালতে ভরণপোষণ চেয়ে মামলা করতে পারেন।


আপনার মতামত লিখুন :
এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর