শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে মহিলা আওয়ামীলীগের ঈদ বস্ত্র বিতরণ শাড়ী, লুঙ্গী ও খাদ্যসামগ্রীর সাথে মুরগীও পেলেন দুস্থ্য ও হতদরিদ্ররা হারভেস্টার মেশিন থাকলে কৃষকরা অনেক লাভবান হবেন: ডিসি কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বিএডিসি কর্মকর্তা ঈদের দিনেও ঝড়বৃষ্টি বজ্রপাতের আভাস প্রবাসী জয় নেহালের সহযোগিতায় কুষ্টিয়া দিনমনি স্কুলের ছাত্রদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সবুজকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে ইউএনও সোহেল মারুফের বিদায় সম্বর্ধনা দৌলতপুরে নিখোঁজ শিশুর অর্ধগলিত বস্তা বন্দী লাশ প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে উদ্ধার ১০ মায়ের মুখে হাসি ফোটাল কুষ্টিয়ার ‘মবিঅ’ কুষ্টিয়ায় একদল তরুনদের উদ্যোগে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
ঘোষণা:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...

‘মামুনুল জামিন পেলে পুনরায় জ্বালাও-পোড়াও হতে পারে’

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৫৫ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২১, ৯:৪০ অপরাহ্ন

হেফাজতে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হকবিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে গ্রেফতার করার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে তার সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। আসামি মামুনুল হক জামিনে মুক্তি পেলে পুনরায় দেশের বিভিন্ন স্থানে দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও জ্বালাও-পোড়াওসহ বিভিন্ন ধরনের ঘটনা সংগঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সোমবার মোহাম্মদপুর থানার চুরি ও ভাঙচুরের মামলায় তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই সাজেদুল হক। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

প্রতিবেদনে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাজেদুল হক উল্লেখ করেন, আসামি মামুনুল হক মামলার ঘটনার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তদন্তে জানা যায়, আসামি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে রাষ্ট্রবিরোধী বিভিন্ন বক্তব্যের মাধ্যমে ধর্মভীরু মুসলমানদের উসকে দিতেন। যার প্রেক্ষিতে এর আগে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে রাষ্ট্রবিরোধী ঘটনা, জ্বলাও-পোড়াও, ভাংচুর ও হত্যাজনিত ঘটনা ঘটেছে।

এর আগে ২০২০ সালে মোহাম্মদপুর থানার একটি ভাঙচুর ও নাশকতার মামলায় ১৯ এপ্রিল তাকে সাতদিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সাজেদুল হক। শুনানি শেষে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম সেদিন তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।সেই রিমান্ড শেষে আজ তাকে আদালতে হাজির করা হয়।

১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগ।

সূত্র : যুগান্তর


আপনার মতামত লিখুন :
এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর