মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

দৌলতপুরে ৩৫ গ্রাম প্লাবিত

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১০৬ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ১৮ আগস্ট, ২০২১, ৯:২৯ পূর্বাহ্ন

পদ্মা নদীতে পানি বাড়তে থাকায় এর তীরবর্তী কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার চিলমারি, রামকৃষ্ণপুর ও মরিচা ইউনিয়নের প্রায় ৪০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে পানি বন্দী হয়ে পড়েছে তিন ইউনিয়নের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ ।

কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বলছে, গত কয়েক দিনে পানির উচ্চতা সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পয়েন্টে পদ্মার বিপৎসীমা নির্ধারণ আছে ১৪ দশমিক ২৫ সেন্টিমিটার। সেখানে আজ মঙ্গলবার পানির উচ্চতা ছিল ১৩ দশমিক ৭৮ সেন্টিমিটার, যা সর্তকবার্তা।

কুষ্টিয়া পাউবোর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এ.কিউ.এম জহুরুজ্জামান বলেন, হঠাৎ পানি বাড়ছে। আরও দু–এক দিন পানি বাড়ার পর কমতে পারে। তবে আমাদের ধারনা পানি বিপদ সীমা অতিক্রম করবেনা।

এবিষয়ে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল জানান, তার উনিয়নের ১৭টি গ্রামের ২৫ হাজার মানুষ এখন পানি বন্দী।
তিনি আরো জানান, ৬০ ভাগ এলাকার বসতবাড়ি পানিতে প্লাবিত । চরম দুর্ভোগে রয়েছেন পানি বন্দী মানুষগুলো ।

এবিষয়ে,চিলমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ জানান, তার ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে বন্যার পানি ঢুকতে শুরু করেছে।

এ ব্যাপারে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার বলেন, মঙ্গলবার সকালে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন এর বন্যার পানি ঢোকার খবর পেয়ে তিনি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার নেতৃত্বে একটি দল প্লাবিত এলাকায় পাঠিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ সহায়তার জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর চিঠি লেখা হচ্ছে। সহযোগিতা পেলে আমরা বন্যা কবলিত এলাকায় তা বিতরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।


এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর