মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

দৌড়ে ট্রেনে উঠতে গিয়ে পা পিছলে পড়লেন মহিলা যাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক / ২১ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১, ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন

চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে পা পিছলে স্টেশনেই পড়ে গেলেন এক মহিলা যাত্রী। যদিও কোনও রকমে প্রাণে বাঁচেন তিনি। ট্রেনে উঠতে গিয়ে যে এমন সাংঘাতিক ঘটনা ঘটবে তা স্বপ্নেও ভাবেননি এই মহিলা। মহিলাটির সঙ্গে থাকা শিশু সন্তান রিয়ান(৬) কে আলমডাঙ্গা স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া চলন্ত ট্রেনে উঠানোর পর মুহূর্তে নিজে ট্রেনে উঠতে গেলে পা পিছলে পড়ে যান স্টেশনের প্লাটফর্মে।

মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলাধীন আলমডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্ম ১ -এ।

সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস আলমডাঙ্গা স্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফর্ম ছেড়ে চলতে শুরু করলে মহিলা যাত্রী সঙ্গে থাকা শিশু সন্তান রিয়াদ কে নিয়ে দৌড়ে ট্রেনের শেষের দিকের ‘জ’ বগিতে উঠতে যান। আদরের সন্তানটি কে কোনো ভাবে তড়িঘড়ি করে বগিতে উঠিয়ে দিতে পারলেও মহিলা আচমকাই রাতের অন্ধকারে পা পিছলে স্টেশনের প্লাটফর্মেই পড়ে যান।

মহিলা চলন্ত ট্রেন থেকে ছিটকে পড়লে ট্রেনে থাকা শিকল টানুন শিকল টানুন বলে চিৎকার করতে থাকেন। ট্রেন থেকে ছিটকে পড়া মহিলার চিৎকার শুনে ছুটে আসেন ‘ঝ’ বগিতে থাকা কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ১০ খেলোয়াড়বৃন্দ।মুজিববর্ষ আন্তঃকলেজ ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিভাগীয় পর্যায়ের অংশগ্রহণ শেষে সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস করে কুষ্টিয়ার উদ্দ্যেশে রওনা দেন খেলোয়ারবৃন্দরা ।

খেলোয়ারবৃন্দরা হলেন সাব্বির মাহমুদ, তুহিন,নয়ন,অরিজিৎ, রাজু,পাপ্পু, আজাদ, সোহানুর, সাকিব, ইব্রাহিম। খেলোয়াড়বৃন্দরা ট্রেনের বগিতে থাকা গাড়ি থামাতে প্রয়োজনে শিকল টানুন ৩ টি স্থানের ৩টি শিকল টানার পরেও ট্রেন থামাতে ব্যার্থ হন।

খেলোয়ারবৃন্দরা হতাশার ছাপ নিয়ে ছোটাছুটির পর খবর পায়। মহিলার সঙ্গে ছিলো শিশু বাচ্চা, বাচ্চাটিকে নাকি কোনো ভাবে ট্রেনে উঠিয়ে দিতে পারছেন। তাৎক্ষনিক খেলোয়ারবৃন্দরা ১০ মিনিট খোঁজাখুঁজির পর সুস্থ অবস্থায় বাচ্চাটিকে উদ্বার করতে সক্ষম হয় ‘জ’ বগি থেকে।

আলমডাঙ্গা থেকে ছেড়ে আসা সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেসটি পোড়াদহ স্টেশন প্লাটফর্ম নাম্বর ১ -এ পৌঁছানো মাত্রই খেলোয়ারবৃন্দ,রেলওয়ে পুলিশ ও স্টেশনের স্টাফের সহযোগিতায় বাচ্চাটিকে পোড়াদহ স্টেশন মাষ্টার এর কাছে নিয়ে যায় এবং স্টেশন মাষ্টার এর সহায়তায় আলমডাঙ্গা স্টেশন মাষ্টার এর মাধ্যমে বাচ্চাটির মায়ের সাথে বাচ্চাটির কথোপকথন করাতে সক্ষম হয়।আহত অবস্থায় আদরের সন্তানের সাথে কথা বলতে পেরে মা ও সন্তান দু’জনেই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলে।

পোড়াদহ স্টেশনের স্টেশন মাষ্টার বাচ্চাটির মা কে ২৪ ডাউন রকেট মেইলের গার্ড ব্রেক এ আনুমানিক রাত ৯ ঘটিকার সময় আলমডাঙ্গা স্টেশন মাষ্টার এর নিকট ফেরৎ পাঠাবেন বলে আশ্বস্ত করেন।


এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর