বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৪৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

ঝিনাইদহের দুই উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের ভোট সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩৯ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১, ৭:২২ অপরাহ্ন

ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ ও কোটচাঁদপুর উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের ভোট কোন সহিংসতা ছাড়াই সম্পন্ন শেষে বেসরকারি ভাবে প্রার্থীদের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে।এতে কালীগঞ্জ উপজেলায় ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে,জামাল ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে মোদাচ্ছের হোসেন মন্ডল,কোলা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলা-উদ্দিন আল আজাদ, নিয়ামতপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে রাজু আহম্মেদ রনি লষ্কর, সিমলা-রোকনপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে নাসির উদ্দিন চৌধুরী, ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নে সতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম ঋতু (হিজড়া), মালিয়াট ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী আজিজুল ইসলাম খাঁ,কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী আয়ুব হোসেন ও রাখালগাছি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মহিদুল ইসলাম মন্টু বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়াও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় উপজেলার সুন্দুরপুর-দূর্গাপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ওহিদুজ্জামান ওদু,রায়গ্রাম ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে আলী হোসেন অপু এবং বারোবাজার ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বিনা-প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।অপরদিকে কোটচাঁদপুর উপজেলার ৫ ইউনিয়নের মধ্যে দোড়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল জলিল বিশ্বাস,কুশনা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহাবুজ্জামান সবুজ,বলুহর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী নজরুল ইসলাম,সাবদারপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মান্নান ও এলাঙ্গী ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে মিজানুর রহমান খান বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তবে নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থীরা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।এদিকে কালীগঞ্জ উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীকে হারিয়ে চমক সৃষ্টি করেছেন তৃতীয় লিঙ্গের হিজড়া প্রার্থী নজরুল ইসলাম ঋতু।তিনি নৌকার প্রার্থী নজরুল ইসলাম ছানাকে ৫ হাজার ভোটে হারিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছেন।নজরুল ইসলাম ঋতু কালীগঞ্জে উপজেলার দাদপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের সন্তান।এলাকাবাসি জানায়,ঋতু ঢাকাতে থাকলেও পরিবারের টানে প্রায়ই তিনি গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসেন এবং গ্রামের অসহায় মানুষকে আর্থিক সহযোগীতা করে আসছিলেন।এভাবেই এলাকায় তার পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে।নজরুল ইসলাম ঋতু বলেন, শুধু নিজের এলাকাতেই নই আমি ঢাকাতে যেখানে থাকি সেখানেও আমি অসহায়দের পাশে থাকতে চেষ্টা করি।আমি যেটা করি এটা আমার সম্মান বা কাউকে দেখানোর উদ্দেশ্যে করিনা।ছোট বেলা থেকে অনেক কষ্টে বাবা মা আমাদের মানুষ করেছে।সেখান থেকে কষ্ট কি সেটা আমি বুঝি।তাই কারো কষ্টের কথা শুনলে আমি নিজেকে ঘরে রাখতে পারিনা।আমার সাধ্যমত সহযোগিতা করতে চেষ্টা করি এবং মহান আল্লাহ পাক যদি আমার উপর সহায় থাকেন তবে বাকি জীবনটা অসহায়দের পাশে থেকেই কাটাতে চাই।


এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর