বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৫৩ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

৭ লাখ টাকা হলেই বেঁচে যাবে নাঈম

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩১ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২, ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন

বাঁচার আকুতি মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী মেধাবী ছাত্র নাঈম মোল্যার (২০)। তিনি ২০২১ সালের ডিসেম্বর থেকে রাজধানী ঢাকার পপুলার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

নাঈমের চিকিৎসায় এ পর্যন্ত কয়েক লাখ টাকা খরচ হয়ে গেছে। উন্নত চিকিৎসা করাতে প্রয়োজন আরও অন্তত ৫ থেকে ৭ লাখ টাকা। কিন্তু তার দরিদ্র বাবার পক্ষে এত টাকা সংগ্রহ করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। এ পরিস্থিতিতে চিকিৎসা চালিয়ে নিতে জরুরি ভিত্তিতে সমাজের বিত্তবান-হৃদয়বান ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়ে আকুল আবেদন জানিয়েছে নাঈমের পরিবার।

নাঈম ফরিদপুরের সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের পাটপাশা গ্রামের মো. সোরহাব মোল্যার একমাত্র ছেলে। নাঈম ২০২০ সালে সালথা সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন।

ছোটবেলা থেকে মেধাবি ছিলেন নাঈম। তার স্বপ্ন লেখাপড়া করে মানুষের মতো মানুষ হওয়া। কিন্তু মরণব্যাধি ক্যান্সারের থাবায় ভাঙতে যাচ্ছে তার সেই স্বপ্ন। নাঈমের বাবা-মা তাদের একমাত্র ছেলেকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। কিন্তু অর্থের অভাবে উন্নত চিকিৎসা করাতে না পারার কষ্টে নাঈমের অসহায় বাবা-মা এখন বাকরুদ্ধ।

নাঈমের প্রতিবেশীরা জানান, মেধাবী ছাত্র নাঈম। কয়েক মাস আগে তার মরণব্যাধি ব্লাড ক্যান্সার ধরা পড়ে। নাঈম অত্যন্ত বিনয়ী ও ভালো ছেলে। হঠাৎ তার এমন ব্যাধি ধরা পড়ল, যা সত্যিই দুঃখজনক। নাঈমের বাবা একজন খেটে খাওয়া মেহনতি দিনমজুর। তার সামর্থ্য নেই ছেলের চিকিৎসা খরচ চালিয়ে যাওয়া। এমন পরিস্থিতিতে সমাজের বিত্তবান-সামর্থ্যবান ব্যক্তিরা নাঈমের চিকিৎসা খরচ চালাতে আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে, হয়তো বেঁচে যাবে এ মেধাবী ছাত্রের প্রাণ।

নাঈমকে সাহায্য পাঠানোর জন্য:

ইউসিবি ব্যাংক, সালথা উপশাখা, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট- ইতালি টেলিকম, অ্যাকাউন্ট নম্বর: ০৬৯২১১২০০০০০১০৯৮


সূত্র: যুগান্তর


এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর