বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন
কোনো অজানা কারণে কখনোই উত্তরবঙ্গের উন্নয়ন ও মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের ব্যাপারে আগ্রহ দেখায় নাই অতীতের কোনো সরকার। শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা সরকারই উত্তরবঙ্গের মানুষের কথা চিন্তা করেন। তাদের সুখ-শান্তি ও বিস্তারিত
আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, সারা দেশের বিভিন্ন জেলায় চলমান মৃদু শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে। শুক্রবার সকাল থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকায় অস্থায়ীভাবে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের
নারায়ণগঞ্জ বন্দরের মদনপুরে একটি পোশাক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে জাহিন নিটওয়্যার নামের ওই কারখানায় আগুন লাগে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। খবর পেয়ে বন্দর, সোনারগাঁ ও
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় দেড় লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা ফুলতলা বালুঘাট থেকে বালু উত্তোলন অবস্থায় গাড়ি সহ তিনজনকে
একজন করোনায় ও তিনজন উপসর্গ নিয়ে ইউনিটটিতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তারা সবাই ময়মনসিংহ জেলার বাসিন্দা। এদিকে, হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব ও অ্যান্টিজেন টেস্টে এক দিনে আরও ২২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার
সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল বাতাসে মানুষ সাধারণ কাজকর্ম করতে পারছে না। নগরীতেও রিকশা-ভ্যান চালকরা একটু পর পর হোটেল কিংবা চায়ের দোকানে চুলার কাছে গিয়ে হাত শেকে নিচ্ছেন। শিশু-বৃদ্ধরা ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। দিনভর ঘরের মধ্যে গায়ে কাঁথা-কম্বল জড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। খড়কুটো জালিয়ে উষ্ণতা নিচ্ছেন অনেকেই। রংপুর নগরীর দর্শনা পালিচড়া রোড এলাকার ফজলু মিয়া প্রতিদিন সকাল হলেই ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নিয়ে বের হন। সারাদিন নগরের ভেতরেই রিকশা চালিয়ে সংসারের হাল ধরার মতো উপার্জন করেন তিনি। শুক্রবার সকালে নগরীর শাপলা চত্বরে যাত্রী না পাওয়ার দীর্ঘক্ষণ চাতক পাখির বসে ছিলেন এই রিকশাচালক। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘আইজ ক্যানবা খুব ঠান্ডা নাগোচে বাহে। মানুষজনো নাই। ঠান্ডার জনতে ঠিকমতো গাড়ি চালাও যাওছে না। এমন আবহাওয়া থাকলে হামার মতো গরিব মানুষের জন্য সমস্যা।’ অন্যান্য বছর ডিসেম্বরের শুরু থেকে এ অঞ্চলে শীতের তীব্রতা বাড়লেও এ বছর শীত নেমেছে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে। নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহ থেকে মৃদুশৈত্য প্রবাহ শুরু হয়ে এখন তা অনেকটা মাঝারি অবস্থায় রয়েছে। বিশেষ করে গত দু’দিন ধরে হিমেল হাওয়া ও ঘন কুয়াশা এ অঞ্চলের মানুষকে কাহিল করে দিয়েছে। এতে করে চরম বিপাকে পড়েছেন নিম্নআয়ের মানুষ। আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান জানান, রংপুরে তাপমাত্রা ৮ থেকে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠানামা করছে। শৈত্যপ্রবাহ আরও দুই-তিনদিন থাকতে পারে।
মৌলভীবাজার-২ আসনের সাংসদ সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেছেন, পত্রিকা খুললেই পরীমণি, খুকুমণি আর দীপু মনিদের কাহিনি। এসব দেখলে বাংলাদেশের বর্তমান ও নতুন প্রজন্ম হতাশ হয়। লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে পরীমণি আর খুকুমণিদের,
মাঘের কনকনে শীত আর হাওয়ায় কাঁপছে রংপুর অঞ্চল। নদ-নদী ভরা হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত এই অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। তাপমাত্রা আরও নেমে যাওয়ার শঙ্কা আছে। সব মিলিয়ে অনেকটাই
Translate »
error: Content is protected !!
Translate »
error: Content is protected !!